শনিবার, জানুয়ারি ২১, ২০১৭


Find us on

সিউড়িতে নোট বাতিলের বিরুদ্ধে এসইউসিআই-এর পুলিশের লাঠি চার্জ।

সংবাদ দাতা, সিউড়ি, ১৬, নভেম্বর- বীরভূমের সিউড়িতে কেন্দ্রের নোট বাতিলের বিরুদ্ধে আন্দোলনের নামায় এসইউসিআই-এর কর্মীদের ওপর ব্যাপক লাঠিচা অভিযোগ। যেখানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বারবার সরব হয়েছেন এবং বিরোধী শক্তিদের এক জোটে আন্দোলনের নামার ডাক দিয়েছেন। সেখানে এদিন সিউড়িতে সেই আন্দোলনে নেমেই সিউড়ি থানার পুলিশের হাতে প্রহৃত হলেন এসইউসিআই-এর কর্মী সমর্থকরা। এদিন এসইউসিআই-এর তরফে জানা গেছে, বুধাবার বেলা ১২টা নাগাদ জেলা এসইউসিআই-এর সিউড়ি শাখার কর্মীরা সিউড়িতে জেলা শাসকের অফিসের সামনে এসে বিক্ষোভ দেখায়। সেখানে সিউড়ির সেই প্রধান সড়ক কিছুক্ষনের জন্য প্রতীকী অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান তারা এবং সেই সঙ্গে প্রধান মন্ত্রীর কুসপুত্তলিকা পোরানো হয়। এই কর্মসূচীর শেষের দিকে হঠাত করে সিউড়ি থানার আইসি সমীর কোপ্তি নিজেই হাতে লাঠি তুলে নিয়ে বেধড়ক পেটাতে শুরু করেন এসইউসিআই-এর কর্মীদের। ঘটনায় দুই এসইউসিআই কর্মী আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ দলের। কিন্তু হঠাত করে কি এমন হল যে সিউড়ি থানার আইসি তাদের ওপর লাঠি চার্জ করলেন সেই নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কারন যখন আন্দোলন চলছিল তখন প্রথমেই কেন আন্দোলনকারিদের নিষেধ করেনি পুলিশ? আহত এসইউসিআই-এর কর্মী কার্তিক হাজরা জানিয়েছেন, “আমাদের আন্দোলন পূর্ব নির্ধারিত ছিল। ১৪ তারিখ থেকে ১৭ তারিখ অবধি সারা বাংলা জুরেই আমাদের এই আন্দোলন হবে। আমাদের শান্তিপূর্ন আন্দোলনে পুলিশ বিনা কারনে লাঠিচার্জ করেছে। আমরা এর প্রতিবাদে ফের আন্দোলনে নামবো।”

        অন্যদিকে কেন্দ্রের নোট বাতিলের ঘটনায় মমতা বন্দোপাধ্যায়ের এক জোটে আন্দোলনের ডাকে নেমে বেকায়দায় এসইউসিআই। তাদের অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রী সবাইকে যেখানে ডেকে আন্দোলন করছেন সেখানে তাদের সরকারের পুলিশ এই ভাবে হামলা কেন করছে। তাহলে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তৃনমূলের আন্দোলন কি শুধু লোক দেখানি। বিরোধী শক্তিদের আন্দোলন নিয়ন্ত্রনে রাখার জন্যই কি এই ভূমিকা? উঠেছে প্রশ্ন।