শনিবার, জানুয়ারি ২১, ২০১৭


Find us on

বীরপাড়া বাগান খুলছে ডানকানস, বাকিগুলি খোলা হবে ধাপে ধাপে

আলিপুরদুয়ার বুরো ও নাগরাকাটা, ১৮ নভেম্বরঃ ২৩ নভেম্বর থেকে খুলে যাচ্ছে ডানকানস গোষ্ঠীর মাদারিহাটের অচল সাতটি চা বাগানের অন্যতম বীরপাড়া চা বাগান। শুক্রবার আলিপুরদুয়ার জেলাশসকের দপ্তরে ডানকানস গোষ্ঠী ও শ্রমিক সংগঠনগুলির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন জেলাশাসক দেবীপ্রসাদ করনম ও জেলাপরিষদের সভাধিপত মোহন শর্মা। বৈঠকে আরও ঠিক হয়েছে, এরপর ডিসেম্বরেই ধুমচিপাড়া বা হান্টাপাড়া বাগানের যেকোনো একটি খুলবে ডানকানস । আগামী বছর মার্চ মাসের মধ্যে ধাপে ধাপে বাকি পাঁচটি বাগানও খুলে দেওয়া হবে। বাগান ফের চালু করার সিদ্ধান্তে খুশি শ্রমিক সংগঠনগুলি। তবে, বীরপাড়া সহ ডানকানস-এর ওি অচল সাত বাগানের শ্রমিকরা সবকিছু না দেখে এখনই উচ্ছ্বাসে ভাসতে রাজি নন।

ডানকানস গোষ্ঠীর তরফে এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সংস্থার ভাইস চেয়ারম্যান কেকে মেহরা। তিনি বলেন, যেরকমভাবে চুক্তি হয়েছে সেই মোতাবেকই আমরা বাগান খুবল। জেলাশাসক দেবীপ্রসাদ করনম বলেন, হাইকোর্টের নির্দেশ ছিল ডানকানস গোষ্ঠীর অচল চা বাগানগুলি দ্রুত খুলতে হবে। এদিনের বৈঠকে মালিক ও শ্রমিকপক্ষ আলোচনা করে মার্চ মাসের মধ্যে একে একে সাতটি চা বাগান খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ২৩ নভেম্বর বীরপাড়া বাগান চালু হবে। ওই বাগানগুলিতে শ্রমিকদের বহু বকেয়া আছে। আগামী জুন মাসে ফের মালিক ও শ্রমিকপক্ষ বৈঠকে বসে বকেয়া নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। বাগান চালু হওয়ার পর মালিকপক্ষ প্রত্যেক শ্রমিককে ১০০০ টাকা করে অগ্রিম দেবে বলে আশ্বাস দিয়েছে। এছাড়া প্রশাসনের তরফে বাগানগুলিতে এমআরইজিএস, পানীয় জল স্বাস্থ্য পরিসেবার ব্যবস্থা করা হবে।’

আলিপুরদুয়ার জেলাপরিষদের সভাধিপতি মোহন শর্মা বলেন, ‘বৈঠক ফলপ্রস হয়েছে মালিকপক্ষ জানিয়েছে, ২৩ নভেম্বর তারা বীরপাড়া চা বাগান খুলতে চলেছে। এরপর হান্টাপাড়া বা ধুমচিপাড়া বাগান খোলা হবে। মার্চ মাসের মধ্যে ধাপে ধাপে বাকি পাঁচটি বাগানও খুলে যাবে। স্বভাবতই আমরা এই সিদ্ধান্তে খুশি। মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও এদিনের বৈঠকের কথা জানাব।’