Find us on

চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ, ভাঙচুর মালদার নার্সিংহোমে
মালদা
শিরোনাম

মালদা, ১৮ সেপ্টেম্বরঃ চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ উঠল মালদা শহরের একটি বেসরকারি নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে। উত্তজিত মৃতের পরিবারের লোকেরা ভাঙচুর চালায় ওই নার্সিংহোমে। এরপর নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করতে গিয়ে পথ অবরোধ করা হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিশাল পুলিশবাহিনী এসে লাঠিচার্জও করে বলে অভিযোগ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে র‍্যাফ। যদিও লাঠিচার্জের অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। এই ঘটনা নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনো পক্ষ থেকেই পুলিশের কাছে অভিযোগ করা হয়নি।

গত শনিবার জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মালদার বাঁশুলিতলা এলাকা সংলগ্ন একটি নার্সিংহোমে ভরতি হন চন্দন বসাক (২৭) নামে এক ব্যক্তি। হঠাত্ই আজ সকালে মৃত্যু হয় চন্দনবাবুর। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন রোগীর পরিবারের লোকেরা। চলতে থাকে ভাঙচুর।

পরিবারের সদস্য শান্তনু দাস, গোকুল দাসের অভিযোগ, জ্বর হওয়ায় চন্দনকে নার্সিংহোমে ভরতি করা হয়েছিল। রক্ত পরীক্ষার করে ডেঙ্গির জীবাণু পাওয়া যায়। তারপর থেকেই চিকিৎসা শুরু হয়। এদিন সকাল থেকে হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়ে সে। বারবার বলার পরেও চিকিত্সকরা কর্ণপাত করেননি। পরিবারের আরও দাবি, এদিন সকালেও চন্দন নিজেই বাথরুমে গিয়েছিল। তারপরই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। খবর পেয়ে তাঁরা পরিবারের লোকেরা নার্সিংহোমে আসেন। তাঁরা চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলতে চান। কিন্তু চিকিত্সকরা কথা বলেননি বলে অভিযোগ। এরপর তাঁর হৃদপিণ্ড পাম্প করা শুরু হয়। দেওয়া হয় মেডিক্যাল সাপোর্ট। কিন্তু, ততক্ষণে মৃত্যু হয় চন্দনবাবুর। চন্দনের মামার অভিযোগ, নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতেই মৃত্যু হয়েছে ভাগনের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *