Find us on

Category: অন্যান্য

মাছে ফ্যাট খুব কম, অথচ প্রোটিন বেশি

আমাদের মধ্যে যারা নন ভেজেটারিয়ান তাঁরা মাছ ছাড়া খাওয়ার কথা ভাবলে অবশ্যই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। মাছ একইসঙ্গে সুস্বাদু এবং নানা পুষ্টিগুণে ভরপুর। সারা বিশ্বে যে খাবারটি সবচেয়ে বেশি খাওয়া হয় সেটা হল মাছ। সহজলভ্যও বটে।

নিয়মিত না খেলেও সপ্তাহে অন্তত দু থেকে তিন দিন অবশ্যই মাছ খাওয়া উচিত। মাছে থাকে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাটি অ্যাসিড, যা আমাদের চোখ এবং মস্তষ্কের জন্য খুবই উপকারী। চোখের রেটিনাও খুব ভালো থাকে।

Read More

পেঁয়াজ কলির মহিমা অপার

শীতকাল যেন পেঁয়াজকলি ছাড়া আধা-অধুরা। শীত পড়তে না পড়েই শুরু এর খোঁজ। খেতে যেমন দারুন, পেঁয়াজকলির উপকারিতাও প্রচুর।

পেঁয়াজকলিতে আছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল এবং অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান। যা পাকস্থলি, লিভার এবং ইউরিন ইনফেকশন রোধে কাজ করে। এছাড়া কোনো জায়গা কেটে গেলে রক্তপাত বন্ধ এবং সেই ক্ষতকে ইনফেকশনমুক্ত রাখার জন্যও পেঁয়াজকলি দারুন কাজ করে।

Read More

বাচ্চার বুদ্ধি বাড়বে নিয়মিত পোস্ত খেলে

১. শরীর গরম হয়ে গেলে অনেকসময় বাচ্চার মুখে ঘা হয়। এরকম হলে পোস্তবাটায় চিনি মিশিয়ে খাওয়ান। মুখের আলসার কমবে।

২. বাচ্চার নিয়মিত পেট পরিষ্কার হয় না? গরম ভাতে রোজ পোস্তবাটা খাওয়ান। ওষুধ ছাড়াই কোষ্ঠকাঠিন্য কমবে।

৩. পোস্তয় প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, কপার, আয়রন রয়েছে। এগুলি মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা বাড়ায়। আপনার বাচ্চাকে ব্রেনি বানাতে চাইলে রোজ পাতে পোস্ত দিন।

Read More

হুপিং কাশিতে বাচ্চা কাবু? সমাধানে আদা

১. শীত পড়লেই ইনফ্লুয়েঞ্জার দাপটে জেরবার সন্তান? মরশুমের শুরু থেকেই আদার রসে মেথিগুঁড়ো মিশিয়ে খাওয়ান। রোগ থেকে রেহাই পাবে বাচ্চা।

২. ঠান্ডায় বুকে-পিঠে সর্দি বসে বাচ্চার ব্রঙ্কাইটিস হতেই পারে। এমনটা হলে মধুর সঙ্গে আদার রস, গোলমরিচগুঁড়ো মিশিয়ে রোজ দিনে তিনবার বাচ্চাকে দিন। সর্দি উঠে আসবে। ব্রঙ্কাইটিসও কমবে।

Read More

পেডিকিওর ছাড়াই শীতকালেও মিলবে পেলব পা

শীতকালের রুক্ষতা আমাদের ত্বকের জেল্লাই কেড়ে নেয়। সবচেয়ে রুক্ষ হয় আমাদের হাত ও পায়ের ত্বক। কিন্তু যদি পাওয়া যায় ঘরোয়া উপায়ে মুশকিল আসানের কিছু উপায়? জেনে নিন কীভাবে-

১) পায়ের ত্বক রুক্ষ হয়ে পড়েছে? সাবানের বদলে ঈষদুষ্ণ জলে পাতিলেবুর রস মিশিয়ে পা পরিষ্কার করুন। চামড়া নরম থাকবে।

 ২) সপ্তাহে একদিন স্নানের সময় ঝামা দিয়ে পা ঘষে নিন। মরা কোষ পরিষ্কার হবে, গোড়ালিও ফাটবে কম।

Read More