Find us on

ইদ হল না খুশির, বন্‌঩ধের জেরে খাবারের জন্য হাহাকার পাহাড়ে
উত্তরবঙ্গ
দার্জিলিং

দার্জিলিং ব্যুরো, ২৬ জুনঃ সোমবার ইদ উপলক্ষ্যে মোর্চা বন্‌঩ধে আংশিক ছাড় দিলেও পাহাড় ছিল পুরোপুরি বন্ধ। মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ গাড়ি নিয়ে চলাচল করতে পারলেও বাজার বা দোকান ছিল বন্ধই। ফলে মাটি হয়েছে ইদের আনন্দ। অশান্তি এড়াতে দার্জিলিং, কার্সিয়াং, কালিম্পং এবং মিরিকে মোতায়েন ছিল প্রচুর পুলিশ।

এদিকে, টানা দু সপ্তাহের বেশি সময় ধরে চলতে থাকা বন্‌঩ধে পাহাড়বাসীর ঘরে খাবারে টান পড়তে শুরু করেছে। আজ একথা মাথায় রেখে সমতল থেকে পাহাড়ে বেশ কয়েক গাড়ি সবজি তুলেছে মোর্চা। পাহাড়ে বিভিন্ন জায়গায় গাড়ি দাঁড় করিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিলি করা হয়েছে বাধাকপি ও আলু। কিন্তু শুধু যে বাধাকপি আর আলু দিয়ে পেট ভরবে না তা বুঝে গিয়েছেন পাহাড়বাসী। কারণ, সকলের ঘরেই চাল, ডাল সবকিছুই বাড়ন্ত।

আর কতদিন এভাবে বন্‌ধ চলবে তা নিয়েও উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক জয়শী দাসগুপ্ত বলেন, ‘সোমবার পাহাড়ের কোথাও নতুন করে অশান্তির খবর নেই।’

যুব মোর্চার সভাপতি প্রকাশ গুরুং এদিন জানান, মঙ্গলবার  দার্জিলিংয়ের পাশাপাশি কালিম্পং, কার্সিয়াং, মিরিক এবং শিলিগুড়ির পিনটেল ভিলেজে বেলা ১১.৩০ মিনিট নাগাদ জিটিএ চুক্তির কপি পোড়ানো হবে। পুলিশ বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে মারাত্মক ফল হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। এপ্রসঙ্গে  জেলাশাসক বলেন, ‘মোর্চা কি করবে সেটা তাদের ব্যপার। অশান্তির মোকাবিলায় প্রশাসন সজাগ রয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *