Find us on

ধর্ষিতাকে ন্যূনতম ৪ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবেঃ সুপ্রিমকোর্ট
দেশ

নয়াদিল্লি, ৬ সেপ্টেম্বরঃ‌ ধর্ষিতাদের ক্ষতিপূরণের পরিমাণ বেধে দিল সুপ্রিম কোর্ট। এর আগে আলাদা আলাদা রাজ্যে ধর্ষণের জন্য আলাদা আলাদা অঙ্কের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হত। এবার থেকে দেশের যেকোনো রাজ্যে ধর্ষণ হলে ক্ষতিপূরণ বাবদ ন্যূনতম ৪ লক্ষ টাকা দেবে প্রশাসন। এর আগে ধর্ষিতাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কোনও নির্দিষ্ট আইন বা নিয়ম ছিল না। ঘটনার গুরুত্ব বুঝে ক্ষতিপূরণের পরিমাণ নির্দিষ্ট করত রাজ্য সরকারগুলি।

যেমন, ওড়িশাতে কোনও মহিলা ধর্ষিতা হলে তাঁকে ক্ষতিপূরণ বাবদ দেওয়া হত ১০ হাজার টাকা। ঘটনার গুরুত্ব বুঝে কোনো রাজ্য সরকার ৫০ হাজার থেকে ১ লক্ষ বা ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিত। গোয়ায় এই টাকার পরিমাণ ছিল ১০ লক্ষ টাকা। কিন্তু নতুন আইনে কোনো রাজ্যই ৪ লক্ষ টাকার কম ক্ষতিপূরণ দিতে পারবে না। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ধর্ষণের ক্ষেত্রে ৪ লক্ষ থেকে ১০ লক্ষ টাকার মধ্যে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। গণধর্ষণের ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণের পরিমাণ ৫ লক্ষ টাকা। কোনও ক্ষেত্রে ধর্ষিতার মৃত্যু হলে তাঁর পরিবারকে ৭ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে রাজ্য সরকারকে। অ্যাসিড আক্রমণের শিকার হল নির্যাতিতাদের ন্যূনতম ক্ষতিপূরণ ৫ থেকে ৭ লক্ষ টাকা দিতে হবে। অ্যাসিড আক্রমণের ফলে নির্যাতিতার মুখমণ্ডল পুরোপুরি পুড়ে গেলে ৭ লক্ষ টাকা, আংশিকভাবে পুড়ে গেলে ৫ লক্ষ টাকা দিতে হবে। অ্যাসিড আক্রমণের শিকার নির্যাতিতাদের ১৫ দিনের মধ্যে অন্তত ১ লক্ষ এবং ২ মাসের মধ্যে অন্তত ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। ধর্ষণের ক্ষেত্রেও আবেদন করার সঙ্গে সঙ্গে অন্তত ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা তাঁর হাতে তুলে দিতে হবে।

বিচারপতি মদন লোকুর, বিচারপতি আব্দুল নাজির এবং বিচারপতি দীপক গুপ্তার ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, ক্ষতিপুরণের জন্য বিচার শেষ হওয়ার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে না ধর্ষিতাদের। ধর্ষণের মামলা রুজু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদন করা যাবে।

 

ধর্ষিতাকে ন্যূনতম ৪ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবেঃ সুপ্রিমকোর্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *