Find us on

মারাঠা সংরক্ষণ আন্দেলনের দ্বিতীয় দিনেও উত্তপ্ত মহারাষ্ট্র
দেশ
প্রথম পাতা

মুম্বই, ২৫ জুলাইঃ ‌ওবিসি কোটায় চাকরি ও শিক্ষায় মারাঠা সংরক্ষণের দাবিতে মহারাষ্ট্র বনধের ডাক দিয়েছে কয়েকটি মারাঠা সংগঠন। আজ বন্‌ধের দ্বিতীয় দিন। বুধবার সকাল থেকে বনধের সমর্থনে মুম্বই, থানে ও নবি মুম্বইয়ে রাস্তায় নেমেছে সমর্থকরা। বিক্ষিপ্ত অশান্তির ছবি ধরা পড়েছে বিভিন্ন জায়গায়। মহারাষ্ট্রের ইস্টার্ন এক্সপ্রেসওয়ে সহ আর্টেরিয়াল রোড আটকে রাখা হয়েছে। মুম্বইয়ে যাওয়ার সব রাস্তা আটকে বিক্ষোভকারীরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। রায়গড়ের সব দোকান জোর করে বন্ধ করে দিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

থানের গোখেল রোডে জোর করে বন্ধ করা হয়েছে দোকানপাট। ওয়াগল এলাকায় ভাঙচুর করা হয় থানে মিউনিসিপাল ট্রান্সপোর্টের বাস। আরোলি থেকে ভাসি পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয়েছে বাস পরিসেবা। থানের মাজিওয়াড়া সেতুর উপর জ্বালানো হয় টায়ার। বন্‌ধ সমর্থকরা থানেতে লোকাল ট্রেন অবরোধও করে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অবশ্য স্বাভাবিক হয় ট্রেন চলাচল। লাতুর জেলার উদগিরে উলটে দেওয়া হয় সবজিবোঝাই ট্রলি। জোর করে দোকান বন্ধ করতে গেলে বন্‌ধ সমর্থকদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে জনতার। বান্দ্রায় আবার হাতজোড় করে ব্যবসায়ীদের দোকান বন্ধ করার অনুরোধ জানান মারাঠা ক্রান্তি মোর্চার সমর্থকরা।

মারাঠা ক্রান্তি মোর্চার তরফে জানানো হয়, শান্তিপূর্ণভাবে বন্‌ধ করা হচ্ছে। সরকার বা পুলিশের কাজে যেন কোনওভাবে বাধা সৃষ্টি না হয়, তা দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সমর্থকদের।

সংরক্ষণ আন্দোলন হিংসাত্মক হয়ে ওঠে সোমবার কাকাসাহেব দত্তাত্রেয় সিন্দে নামে এক ২৮ বছরের প্রতিবাদী যুবকের আত্মহত্যার ঘটনায়। প্রতিবাদ মিছিল থেকেই তিনি গোদাবরী নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন। তাঁকে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও ডাক্তাররা জানান, আগেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

মারাঠা ক্রান্তি মোর্চাই মূলত রাজ্যজুড়ে এই বনধের ডাক দিয়েছে। তাদের সমর্থন করছে আরও কয়েকটি মারাঠা সংগঠন। গতকাল নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন এক আন্দোলনকারী। শোলাপুর জেলার পন্ধরপুর এলাকায় মারাঠা সম্প্রদায়ের কয়েকজন সদস্য অশান্তি পাকাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। তিনি শোলাপুর জেলার একটি অনুষ্ঠানও বয়কট করেন। মুখ্যমন্ত্রী ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত এই বিক্ষোভ চলবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীদের নেতা রবীন্দ্র প্যাটেল।

 

মারাঠা সংরক্ষণ আন্দেলনের দ্বিতীয় দিনেও উত্তপ্ত মহারাষ্ট্র

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *