Find us on

পাকিস্তানের প্রথম শিখ পুলিশ আধিকারিককে পাগড়ি খুলে হেনস্তা
আন্তর্জাতিক

লাহোর, ১১ জুলাইঃ ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের জন্য পাকিস্তান যে আজও বিপজ্জনক দেশ তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল গুলাব সিং শাহিনের হেনস্তা ঘটনা। পাকিস্তানে তিনিই সর্বপ্রথম শিখ ট্রাফিক পুলিশ আধিকারিক। মঙ্গলবার তাঁকে তাঁর বাড়ি থেকে স্ত্রী-পুত্র সমেত গলাধাক্কা দিয়ে বের করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন গুলাব সিং। শুধু গলাধাক্কাই নয়, তাঁর পাগড়ি খুলে হেনস্তা এবং মারধরও করা হয় বলে জানিয়েছেন তিনি।
এক ভিডিয়ো বার্তায় গুলাব সিং বলেছেন, ১৯৪৭ সাল থেকে আমি আমার পরিবারের সঙ্গে পাকিস্তানে রয়েছি। দাঙ্গার পরও আমরা পাকিস্তান ছেড়ে যাইনি। কিন্তু এখন আমাদের দেশ ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য করা হচ্ছে। পাকিস্তানে বসবাসকারী শিখ সম্প্রদায়ের উপর কী অত্যাচার করা হয় সেটা সবার জানা উচিত। সোশ্যাল মিডিয়ায় ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়ে যাওয়া ভিডিয়োয় দেখা গিয়েছে, পাকিস্তানের ইভাকিউ ট্রাস্ট প্রপার্টি বোর্ড (পিইটিপিবি)-এর আধিকারিক এবং পুলিশকর্মীরা গুলাব সিংকে বাড়ি থেকে বের করে তাঁর পাগড়ি খুলে চুল ধরে হিড়হিড় করে টেনে নিয়ে যাচ্ছে।

পাকিস্তানের প্রথম শিখ পুলিশ আধিকারিককে পাগড়ি খুলে হেনস্তা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *