Find us on

শীতে শরীরকে দূষণমুক্ত রাখতে খাচ্ছেন তো এই খাবারগুলো?
অন্যান্য
জীবনযাপন

উত্তরবঙ্গ সংবাদ পোর্টালঃ দিনদিন শহরে বাড়ছে দূষণের মাত্রা। বাইরে বের হওয়া প্রত্যেকে এমনকী ঘরেও শিকার হতে হচ্ছে দূষণের। তবে কিভাবে নিজেকে দূষণ থেকে বাঁচাবেন? রোজকার কিছু খাবারের সঙ্গে এই খাবারগুলোই পারে আপনাকে দূষণের হাত থেকে বাঁচাতে। তাই সুস্থ থাকতে শীতের দিনে রোজ খান এই খাবারগুলো।

আখরোট: 
একটু দাম বেশি। তবে অল্পেতেই কাজ করে অনেকখানি। দূষণে মূল সমস্যা হয় শ্বাসকষ্ঠ। আখরোট ফুসফুসকে দূষণমুক্ত রাখতে সাহায্য করে। আখরোটের আরেকটি উপকারিতা হল, এটি মেজাজ চনমনে রাখে। দূষণে বিধ্বস্ত হয়ে বাড়ি ফিরলে আখরোট হয়ে উঠতে পারে আপনার ইন্সট্যান্ট এনার্জির চাবিকাঠি।
লেবু:
দেহে পর্যাপ্ত ভিটামিন সি-এর জন্য চিকিত্‍সকরা প্রায়ই লেবু খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এতে যেমন ত্বক উজ্জ্বল হয়, তেমনই বাড়ে হজম শক্তিও। পাশাপাশি নিয়ম মেনে লেবু জল খেলে ডিহাইড্রেশন থেকে আপনি কয়েকহাত দূরে। আবার খেতে পারেন লেবু চাও। মিটে যাবে গলার সমস্যাও। তাছাড়া স্কিন ক্যানসার থেকেও রক্ষা করে লেবু।
ক্র্যানবেরি: 
লাল রঙের আঙুরের মতোই দেখতে এই ফলের গুণ অনেক। ভিটামিন সি, ই এবং এ সবই রয়েছে এতে। শরীরে ভিটামিন সি সংরক্ষিত হয় না। আর তাই খাবারের পাতে ক্র্যানবেরি থাকলেই অভাব অনায়াসেই পূরণ হবে। দূষণের ফলে ত্বকে অ্যালার্জি, র‍্যাশ ইত্যাদি হতে পারে। ক্র্যানবেরি সেসব থেকেও আপনার ত্বককে রক্ষা করে। সুস্থ রাখে ত্বককে। সংক্রমণের সঙ্গে লড়াইয়ে শক্তি জোগায়।
জল:

দিনে অন্তত তিন লিটার করে জল খান। শরীর থেকে দূষণ দূরে রাখতে জলের ভূমিকা অনস্বীকার্য। তাছাড়া পেট পরিষ্কার থাকলে এবং হজম ভাল হলে শরীরও সুস্থ থাকে।
গুড়:
শীতকাল মানেই গুড়ের সিজন। গুড়ে রয়েছে অনেক আয়রন। যা শরীরে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ বাড়ায়। ফলে রক্তে অক্সিজেন চলাচল বৃদ্ধি পায়। স্বাভাবিকভাবেই দূষণের কোনো প্রবাব পড়তে দেয়না শরীরে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *