শুক্রবার, জুলাই ২৮, ২০১৭


Find us on

বাংলাদেশের জেল থেকে দেড় বছর পর ঘরে ফিরলেন বুদ্ধিনাথ

হিলি, ২৯ জুনঃ অবশেষে ঘরে ফিরলেন হিলির বুদ্ধিনাথ সোরেন। ভুলবশত সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে চলে যাওয়া বুদ্ধিনাথ সেদেশের জেল থেকে মুক্তি পেয়ে বুধবার ফিরে এসেছেন নিজের দেশে, নিজের ঘরে। প্রায় দেড় বছর পরে স্বামী ঘরে ফেরায় বাকরহিত বুদ্ধিনাথের স্ত্রী বাসন্তীদেবী। দেশে ফিরে প্রথম দেখলেন তাঁর দেড় বছরের মেয়েকে।

হিলি ব্লকের পাঞ্জুল গ্রাম পঞ্চায়েতের বানোড়া গ্রামের বাসিন্দা, ৩৫ বছরের বুদ্ধিনাথ শ্রমিক শ্রেণির প্রতিনিধি। অযাচিত ঘটনাটি ঘটেছিল ২০১৫ সালের ২৮ ডিসেম্বর। তখন অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন বাসন্তিদেবী। সেদিন পাশের আগ্রা গ্রামে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যান বুদ্ধিনাথ। বানোড়ার মতো আগ্রা গ্রামটিও ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে। বিয়ের রাতে আকণ্ঠ মদ্যপান করায় বুদ্ধিভ্রম হয় বুদ্ধিনাথের। নেশার ঝোঁকে চলে যান বাংলাদেশে। তাঁকে ধরে ফেলেন বর্ডার গার্ড অফ বাংলাদেশের জওয়ানরা। বিচারের পর তাঁকে সেদেশের দিনাজপুর জেলে রাখা হয়। ততদিনে বাসন্তীদেবী এক কন্যাসন্তানের জন্ম দিয়েছেন। স্বামীর অবর্তমানে কোলের শিশুকে নিয়ে বড়ো বিপদে পড়ে যান তিনি। কাজ করার সামর্থ্য না থাকায় সদ্যোজাত সন্তান নিয়ে তাঁকে প্রায়শই অভূক্ত অবস্থায় দিন কাটাতে হয়। স্বামীকে ফিরিয়ে আনতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের দ্বারস্থ হন। তবে এই বিষয়ে রাজনৈতিক নেতৃত্বেরও কিছু করার ছিল না। এরপরই তিনি যোগাযোগ করেন উত্তরবঙ্গ সংবাদের সঙ্গে। স্বামীকে ঘরে ফেরাতে তিনি দ্বিতীয়বার চেষ্টা করেন।

বুদ্ধিনাথকে ঘরে ফেরাতে বাসন্তীদেবী এবার লিখিত আবেদন জানান জেলাশাসক, পুলিশ সুপার ও মহকুমাশাসকের কাছে। সেই খবর প্রকাশিত হয় উত্তরবঙ্গ সংবাদে। এরপরই নড়েচড়ে বসে জেলা প্রশাসন। বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত খোঁজখবর নিতে শুরু করেন সদর মহকুমাশাসক ইশা মুখার্জি। তিনি কলকাতায় বাংলাদেশ হাইকমিশনারের কাছে বুদ্ধিনাথের ভারতীয় নাগরিকত্ব সংক্রান্ত যাবতীয় নথিপত্র পাঠান। শুরু হয় প্রশাসনিকস্তরে কথাবার্তা। অবশেষে ভারত-বাংলাদেশ হাইকমিশনের সদর্থক পদক্ষেপে বাংলাদেশের জেল থেকে মুক্তি পান হিলির যুবক। দেশে ফিরেই দেড় বছরের মেয়ে জাপটে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।

ঘরে ফিরে সদর মহকুমাশাসক ও উত্তরবঙ্গ সংবাদের কাছে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেছেন বুদ্ধিনাথ। এপ্রসঙ্গে সদর মহকুমাশাসক ইশা মুখার্জি জানান, বুদ্ধিনাথ সোরেনকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারই সব কাজ করেছে। তিনি শুধু সরকারি প্রতিনিধি হিসেবে নির্দিষ্ট জায়গায় বিষয়টি জানিয়ে দিয়েছিলেন।