fbpx

Find us on

কমছে রাতের অন্ধকার! ফল হতে পারে মারাত্মক
প্রযুক্তি

নিউইয়র্ক, ২৫ নভেম্বরঃ ক্রমশ কমছে রাত ও দিনের ফারাক। বিশ্বের জনবহুল জায়গাগুলিতে এই তফাত্‍ বেশ স্পষ্ট। এই পরিবর্তনে বিপদ বাড়ছে মানুষের স্বাস্থ্যের। এমনটাই সতর্কবার্তা দিলেন বিজ্ঞানীরা।

বিশ্বজুড়ে বাড়ছে কৃত্রিম আলো ও এর উজ্জ্বলতার পরিমাণ। ফলে পৃথিবী থেকে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে রাত। জানা গিয়েছে, কেবল ২০১২ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যেই ঘরের বাইরে কৃত্রিম আলোর ব্যবহার প্রতি বছর ২ শতাংশ হারে বেড়েছে। স্যাটেলাইট ইমেজ দেখে বিজ্ঞানীরা বলছেন, এলইডি ও ফ্লুরোসেন্ট বাতির অতি ব্যবহারে অনেক দেশ থেকেই ‘রাত হারিয়ে যাচ্ছে’। এর ফলে ‘উদ্ভিদ, প্রাণী ও মানুষের জীবনধারণে পড়ছে নেতিবাচক প্রভাব।

এই গবেষণা করা হয়েছে রাতের আলোর উজ্জ্বলতা মাপতে বিশেষভাবে বানানো নাসার স্যাটেলাইট রেডিওমিটারের সাহায্যে। এই গবেষণায় আরও জানানো হয়েছে, বিভিন্ন দেশে রাতের উজ্জ্বলতার হারে তারতম্য দেখা গিয়েছে। ‘উজ্জ্বল রাতের’ জন্য বিশেষভাবে পরিচিত যুক্তরাষ্ট্র ও স্পেনে গড় একই থাকলেও দক্ষিণ আমেরিকা, আফ্রিকা ও এশিয়ার দেশগুলোতে কৃত্রিম আলোর ব্যবহার ও এর উজ্জ্বলতার পরিমাণ বাড়ছে।

অন্যদিকে, যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া ও ইয়েমেনের মতো দেশগুলোতে রাতের উজ্জ্বলতার পরিমাণ কমে এসেছে।

স্যাটেলাইটের ছবিতে মাকড়সার জালের মতো ছড়িয়ে থাকা শহরগুলোতে রাতের আলো চমত্‍কার দেখালেও বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই প্রবণতা মানব স্বাস্থ্য ও পরিবেশের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলছে। নাসার স্যাটেলাইট রেডিওমিটারের ছবি নিয়ে করা গবেষক দলের প্রধান জার্মান রিসার্চ সেন্টার ফর জিওসায়েন্সের ক্রিস্টোফার কাইবা জানান, কৃত্রিম আলোর এ ব্যবহার পরিবেশের জন্য ভয়াবহ হুমকি হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

 

 

কমছে রাতের অন্ধকার! ফল হতে পারে মারাত্মক

Leave a Reply