Find us on

৩ দিন ধরে মায়ের নিথর দেহ আগলে মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলে
দক্ষিণবঙ্গ
শিরোনাম

দুর্গাপুর, ৯ সেপ্টেম্বরঃ তিন-চারদিন আগেই মারা গিয়েছেন মা। তবে সেকথা কাউকে জানায়নি মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলে। মায়ের নিথর দেহের পাশে বসেই কাটিয়ে দিয়েছেন তিনদিন। ঘটনাস্থল দুর্গাপুর নগরনিগমের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের রবীন্দ্রপল্লী। মৃতদেহে পচন ধরতে শুরু করলে দূর্গন্ধ বেরোলে বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে।

রবীন্দ্রপল্লী এলাকায় মা সানন্দা নন্দীর সঙ্গে ভাড়া বাড়িতে থাকতেন ইন্দ্রদীপ নন্দী। স্থানীয় সূত্রে খবর, বেশিরভাগ সময়ই বন্ধ থাকত তাদের ঘর। বেশ কিছুদিন ধরেই ওই বাড়ি থেকে পচা গন্ধ বেরিয়ে আসছিল। গতকাল সন্ধ্যায় সেই দুর্গন্ধ সহ্যের মাত্রা ছাড়িয়ে যায়। এরপরই দূর্গন্ধের উত্স খুঁজতে গিয়ে স্থানীয়রা দেখতে পান, ইন্দ্রদীপদের ভাড়া বাড়ি থেকেই আসছে এই দুর্গন্ধ। ঘরে ঢুকতেই দেখতে পান সান্দাদেবীর মৃতদেহ। বিছানায় পড়ে থাকা মৃতদেহে পচন ধরা শুরু করেছে। আর সেই মৃতদেহ আগলে বসে রয়েছেন ইন্দ্রদীপ।

মানসিক ভারসাম্যহীন ছোট ছেলে ইন্দ্রদীপের সঙ্গেই থাকতেন সানন্দাদেবী। বড়ো ছেলে ইন্দ্রনীল থাকতেন কাছাকাছি। ইন্দ্রদীপকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায়, ৩-৪ দিন ধরে মা তাঁর সঙ্গে কথা বলছে না। অর্থাৎ ৩-৪ দিন আগেই মৃত্যু হয়েছে সানন্দাদেবীর। এরপর খবর দেওয়া হয়েছে বড়ো ছেলে ইন্দ্রনীল এবং স্থানীয় পুলিশ স্টেশনে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *